দিনের শুরুতে চা বা কফি খাওয়ার ৫টি উপকারীতা

দিনের শুরুতে চা বা কফি খাওয়ার ৫টি উপকারীতা


চা বা কপি কে পছন্দ করে না এমন লোক পাওয়া কঠিন। কফি বা চা এর উপকারী রয়েছে হোক তা দিনের শুরু হোক তা শেষে। 

অনেক সময় আমরা আমাদের ক্লান্তি দূর করার জন্য চা বা কফি পান করে থাকি।

দিনের শুরুতে চা বা কফি খাওয়ার ৫টি উপকারীতা


সকালে চা বা কফি খাওয়ার কি স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর ?

আসলে ঘুম থেকে উঠেই চা বা কফি খাওয়াটা শরীরের জন্য অনেক সময় অনেক গবেষক উপকারী হিসেবেই মনে করেন। 

শহরের প্রতিটা মানুষ সাধারণত সকালে উঠে চা বা কফি খায়। কারণ চা বা কফি আমাদের প্রত্যেকের শরীরের জন্য উপকারী এবং 

সারা দিনে মনকে সতেজ রাখার একটি মাধ্যম। আজকে আমি চা বা কফি খাওয়া উপকারীতা সম্পর্কে আলোচনা করার চেষ্টা করবো। 

৫টি উপকারীর লিস্ট নিচে দেওয়া হলো। যথাঃ- 

১. মানসিক শক্তি বৃদ্ধি করে
২. রোগের ঝুঁকি কমায়
৩. মন সতেজ রাখে 
৪. ঘুমের ভাবটা কাটিয়ে দেয় 
৫. কাজের প্রতি মনোযোগ বৃদ্ধি পায়

>> বর্তমানে বাস্কেটবল খেলার ৫টি প্রয়োজনীতা


দিনের শুরুতেই যদি আপনি এক কাপ চা বা কফি পান করতে পারেন তাহলে আপনার উপরের কাজগুলো ছাড়াও আরও বেশি কিছু সুবিধা হবে। 

আজকে আমি উপরের ৫টি বিষয়গুলো নিয়ে সামান্য বিস্তারিত বলার চেষ্টা করবো। যেমন আপনাদের বোঝার সুবিধা হয়। 

১. মানসিক শক্তি বৃদ্ধি করে

চা বা কফি আমাদের মনকে সতেজ করার পাশাপাশি আমাদের মানসিক শক্তিকে বাড়িয়ে দেয়। 

অনেক সময় সকালে নাস্তা করার আগে যদি আমরা চা বা কফি পান করি তাহলে সেটা আমাদের খাদ্য পরিপাকের জন্য যথেষ্ট ভালো ভূমিকা পালন করে থাকে। 

মানসিক শক্তি বৃদ্ধির জন্য আমাদের সবচেয়ে বেশি যেটা প্রয়োজন তা হলো আমাদের মনকে সতেজ রাখা। 

আর চায়ের চাইতে কফি এই কাজটা অনেক ভালো করে থাকে। আসলে কফিতে ক্যাফেইন থাকার কারণে এইটা অনেক দ্রুত হয়। 

২. রোগের ঝুঁকি কমায়

সকালের নাস্তার আগে বা সকালে কোথাও যাওয়ার আগে যদি আমরা এক কাপ চা বা কফি খেতে পারি তাহলে আমাদের রোগের ঝুঁকি 

অনেকাংশই কমে যাবে বলে গবেষকরা মনে করেন। চায়ের সাথে রুটি বা নাস্তার জাতীয় কোন কিছু আমাদের শরীরের ক্ষূদা নিবারণ করার 

পাশাপাশি আমাদের শরীরের ক্ষতিকর ভাইরাসকে মেরে ফেলতে সহযোগীতা করে থাকে। অনেকেই মনে করেন স্বাস্থ্য 

কমানোর জন্য সকালে নাস্তা করলেই তো ভালো হয়। আসলে দিনের শুরুতেই আমাদের শরীরে যথেস্ট এনার্জির দরকার পড়ে। 

অনেক সময় ঘুমিয়ে থাকার কারণে আমাদের শরীরে শক্তির প্রয়োজন হয়। আর এই বাড়তি খাদ্য আমাদের সেই শক্তিকে জুগিয়ে দেয়। 

৩. মন সতেজ রাখে 

কাজের ফাকে ফাকে অনেক সময় আমরা চা বা কফি পান করে থাকি। মনকে সতেজ করার জন্য গবেষকরা কফি পানের 

কথা বলে থাকেন অনেক সময়। বাইরের দেশে অনেক সময় ডাক্তাররা মনকে সতেজ করার জন্য চা ও কফি পানের পরামর্শ দিয়ে থাকেন। 

আর অনেক সময় এই বিষয়টাই আমাদের দেশেও দেখা যায়। যদিও আমাদের দেশের চায়ের ফ্লেবারটার চাইতে কফির ফ্লেবারটা অনেক বেশি ভালো বোঝা যায়। 

৪. ঘুমের ভাবটা কাটিয়ে দেয় 

অনেকেই ঘুম থেকে উঠেই চা বা কফি পান করেন। এতে করে অনেকেই মনে করেন যে তাদের ঘুমের যেই ভাবটা ছিল সেটা কেটে যায়। 

আসলেও বিষয়টা এরকমই। আমরা অনেক সময় সারারাত ঘুমিয়ে থাকার কারণে আমাদের শরীরে এক ধরনের 

হরমোন নিঃসরণ হয়ে থাকে যা গরম জাতীয় কোন কিছু পান করলে সেটা দূর হয়ে যায়। 

আর চা বা কফির মাধ্যমেই এই ঘুমের ভাবটা দ্রুতই দূর করা সম্ভব হয়। যদিও অনেকেই মনে করে থাকেন। চায়ের চাইতে কফি উত্তম। 

৫. কাজের প্রতি মনোযোগ বৃদ্ধি পায়

অনেকেই আছেন সকালে নাস্তা করার পরে চা বা কফি পান করে থাকেন। আবার অনেকেই আছেন সকালে ঘুম থেকে উঠেই চা বা কফি পান করে থাকেন। 

তবে কাজে যোগ দেওয়ার আগে পান করে নেওয়াটা সবেচেয়ে ভালো। এতে করে কাজের প্রতি ডেডিকেশানটা বেড়ে যায়। 

আসলে একটা বিষয় হলো যে, আমরা কোন কিছু পান করি বা খাই তা আমাদের শরীরের জন্যই খেয়ে বা পান করে থাকি। 
যদি শরীরের জন্য ক্ষতিকর হয় আর নেশার মত হয় তাহলে সেটা ত্যাগ করাই সবচেয়ে বুদ্ধিমানের কাজ হবে সবার জন্য। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *